বেসিX: কম্পিউটারে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটলেশন

সংস্করণ: ওয়ার্ডপ্রেস ৩.২.১, ৩.৩, ৩.৩.১+

জ্ঞানস্তর: প্রাথমিক

ওয়েব ডিযাইনিং-এ CMS (Content Management System)-এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো জুমলা। কিন্তু প্রাথমিক জ্ঞান দিয়ে যারা ওয়েব ডিযাইন করতে চান, তাদের কাছে সবচেয়ে বেশি পছন্দের ওয়ার্ডপ্রেস। যারা ইন্টারনেটে WordPress.com-এ একটা ব্লগ সাইট খুলেছেন, তারা খুব আশ্চর্য হয়ে ভাবছেন, ওয়ার্ডপ্রেস তো ব্লগ! এটা ওয়েবসাইট হবে কিভাবে? হ্যা, ব্লগের ধারণাকে একটু বদলে নিয়ে ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে জনপ্রিয় সব ওয়েবসাইট বানানো যায়। আর তার প্রকৃষ্ট উদাহরণ আপনারা দেখতে পাবেন WordPress.org ওয়েবসাইটে (.com নয়)।

যাহোক, কিভাবে ওয়েবসাইট ডিযাইন করা যায় ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে, তা আমরা কোনো এক টিউটোরিয়ালে বলার আশা রাখি, ইনশাল্লাহ। তবে শুরুতেই আপনাকে সেজন্য ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করে নিতে হবে আপনার কর্মক্ষেত্রে। এটা যেমন ইন্সটল করা যায় আপনার কম্পিউটারে, তেমনি ইন্টারনেটের সার্ভারেও। আমরা প্রথমে কম্পিউটারে ইন্সলেশন পদ্ধতিটা দেখিয়ে দিচ্ছি, তাহলে সার্ভারে ইন্সটল-প্রক্রিয়া সহজ হয়ে যাবে।

কম্পিউটারে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করা

ধাপ ১: যেহেতু ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে তৈরি ওয়েবসাইটের ভিতরে পিএইচপি (PHP) এবং মাইএসকিউএল (MySQL) কোড তৈরি হয়, তাহলে বোঝাই যাচ্ছে যে, এই ওয়েবসাইটটি হবে সার্ভার-সাইডে। সেজন্য আপনার কম্পিউটারে লোকালসার্ভার তৈরি করে নিতে হবে (দেখুন: বেসিX: লোকাল সার্ভার ইন্সটলেশন)।

লোকাল সার্ভার (Wamp, Xamp) ইন্সটল হয়ে গেলে তা চালু করতে হবে। লোকাল সার্ভার চালু হলে এবার দ্বিতীয় ধাপের কাজ।

ধাপ ২: WordPress.org ওয়েবসাইট হলো ওয়ার্ডপ্রেসের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট। এখান থেকে^ ওয়ার্ডপ্রেসের সাম্প্রতিক সংস্করণটি ডাউনলোড করে নিতে হবে। ডাউনলোড করা ফাইলটি হবে একটি কমপ্রেস্‌ড ফাইল (*.zip কিংবা *.rar)। ধরা যাক আমাদের সাম্প্রতিক সংস্করণটি হলো: wordpress-3.5 এবং ডাউনলোড করা ফাইলটা হলো wordpress-3.5.zip। এবারে কোনো একটা আন-কমপ্রেস করার সফ্‌টওয়্যার দিয়ে ফাইলটাকে আন-কমপ্রেস (আনযিপ) করতে হবে। করলে wordpress-3.5 নামক একটা ফোল্ডার পাওয়া যাবে। এই ফোল্ডারের ভিতরে wordpress নামক আরেকটা ফোল্ডার পাওয়া যাবে। এই wordpress ফোল্ডারটি কপি করে নিতে হবে, এবং কম্পিউটারের লোকাল সার্ভারে (অর্থাৎ www ফোল্ডারে…) পেস্ট করতে হবে। এবারে প্রজেক্টের খোঁজ (ট্রেস) রাখার সুবিধার্থে ফোল্ডারটাকে রিনেম করে নেয়া যেতে পারে {ঐচ্ছিক কাজ} (আমরা এখানে nanodesigns দিয়ে রিনেম করেছি)।

এভাবে ডাউনলোড করে কপি-পেস্ট করতে হবেধাপ ৩: আপনার ওয়ার্ডপ্রেসের যাবতীয় উপাত্তগুলো বা ডাটাগুলো সংরক্ষণের জন্য একটা ডাটাবেজ বানিয়ে নিতে হবে এপর্যায়ে। এজন্য আপনার ব্রাউযারের এ্যাড্রেসবারে টাইপ করতে হবে:

http://localhost/phpmyadmin

তাহলে আপনি পিএইচপিমাইএ্যাডমিন-এর প্যানেলে চলে আসবেন। এখানে প্রথম পাতায়ই MySQL localhost অংশে Create new database-এ আপনার প্রোজেক্টের ডাটাবেজের নাম লিখুন। যেভাবে লিখলে আপনি পরবর্তিতে ডাটাবেজের নাম দেখে প্রোজেক্টকে চিনতে পারবেন, সেরকমই একটা নাম লিখলে ভবিষ্যতে কাজ সহজ হবে (আমরা, আমাদের প্রোজেক্টের সাথে মিলিয়ে রেখেছি nanodb), অথবা আপনার যা ইচ্ছা একটা নাম দিন। তারপর Create বোতামে ক্লিক করে ডাটাবেজ তৈরি সম্পন্ন করুন (লেখা আসবে: Database nanodb has been created.)।

ধাপ ৪: এবারে ব্রাউযারের এ্যাড্রেসবারে লিখুন: http://localhost/nanodesigns (যেহেতু আমাদের ফোল্ডারের নাম nanodesigns)।

ক. “Create a Configuration File” বোতামে ক্লিক করুন। পরবর্তি উইন্ডোতে Let’s go চাপুন।

খ. খালি ঘরগুলো পূরণ করুন:

Database name: এখানে, কিছুক্ষণ আগে যে ডাটাবেজ নাম দিয়ে ডাটাবেজ তৈরি করেছেন, এখানে সেই ডাটাবেজের নামটি লিখুন, কিংবা কপি করে পেস্ট করুন। (উদাহরণ অনুযায়ী হবে nanodb)

Username ও Password: এখানকার ইউযারনেম ও পাসওয়ার্ড আপনাকে জানতে হবে। যদি জানা না থাকে, তাহলে আপনার লোকাল সার্ভার সফ্‌টওয়্যারের ফোল্ডারে যান, তারপর Apps ফোল্ডারের ভিতরের phpmyadmin ফোল্ডারে যান। আমাদের এখানে পাথ হলো: C:wampappsphpmyadmin3.3.9। এখানে config.inc.php নামক ফাইলটি যেকোনো কোড এডিটরে খুলুন। কোড এডিটর না থাকলে Notepad দিয়েই খুলতে পারেন।

/* Server: localhost [1] */
$i++;
$cfg['Servers'][$i]['verbose'] = 'localhost';
$cfg['Servers'][$i]['host'] = 'localhost';
$cfg['Servers'][$i]['port'] = '';
$cfg['Servers'][$i]['socket'] = '';
$cfg['Servers'][$i]['connect_type'] = 'tcp';
$cfg['Servers'][$i]['extension'] = 'mysqli';
$cfg['Servers'][$i]['auth_type'] = 'config';
$cfg['Servers'][$i]['user'] = 'root';
$cfg['Servers'][$i]['password'] = '';
$cfg['Servers'][$i]['AllowNoPassword'] = true;

সেখানে user এবং password লেখাদুটো লক্ষ করুন। চিত্রে user এবং password চিহ্নিত করে দেখানো হয়েছে, যেখানে user-এর ডান পাশে লেখা দেখুন: ‘root’; অর্থাৎ আমার ডাটাবেযের ইউযার হলো root। পাসওয়ার্ড-এর পাশে লেখা: ‘’; অর্থাৎ এখানে পাসওয়ার্ড ব্ল্যাংক বা ফাঁকা রাখা হয়েছে।

তাই চিন্তা না করে আপনার ইন্সটলেশনের ইউযারনেম ও পাসওয়ার্ড ফিল্ড দুটো পূরণ করে ফেলুন। আমাদের এখানে username: root; password: । পাসওয়ার্ড যেহেতু নেই, তাই ঐ ঘরের সব লেখা মুছে দিয়ে ওটাকে ফাঁকা রাখতে হবে।

Database Host: Localhost অপরিবর্তনীয় রাখুন।

Table Prefix: ওয়ার্ডপ্রেসের পূর্ববর্তি সংস্করণগুলোতে এটা মুছে দেয়া যেত, কিন্তু ৩.৪.২’র পর থেকে এটা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। (টেবিল প্রিফিক্স আর কিছুই না, যেসব টেবিল ডাটাবেজে তৈরি হবে, সেগুলোর নামের আগে এই নামটি যুক্ত হবে, এই আরকি, যেমন: wp_user ইত্যাদি, যার ব্র্যান্ডিং ছাড়া কোনো ব্যবহারিক প্রয়োগ নেই।) তাই আপনার ডাটাবেযের টেবিলগুলোকে সনাক্ত করার সুবিধার্থে এখানে পছন্দনীয় কিন্তু সংক্ষিপ্ত যেকোনো প্রিফিক্স দিতে পারেন। যেমন আমরা দিলাম ndb_ (এনডিবিআন্ডারস্কোর)।

এবারে submit বোতামে চাপুন।

সব ঠিকঠাক হলে Run the install বোতামওয়ালা একটা পাতা আসবে। এই বোতামে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ ৫: Welcome লেখা একটা স্ক্রীন আসবে, এখানে Information needed অংশে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি দিন।

Site Title: আপনার ওয়েবসাইটের নাম লিখুন।

Username: কোন ইউযারনেম দিয়ে ওয়েবসাইট পরিচালনা করবেন। সাধারণত সবাই Admin-ই রাখে।

Password, twice: দুইবার একই পাসওয়ার্ড দিন এবং সেটা মনে রাখুন।

Your E-mail: আপনার ই-মেইল ঠিকানাটি লিখুন, পাসওয়ার্ড হারিয়ে গেলে [ইন্টারনেট সংযোগ থাকলে] এই ঠিকানায় তা পাঠিয়ে দিবে সিস্টেম।

Privacy: আপনার ওয়েবসাইটটি সবাই দেখতে পারবেন কিনা, এবং সার্চ ইঞ্জিনের কাছে দৃশ্যমান করবেন কিনা, তার সিদ্ধান্ত দিন।

Install WordPress বোতাম চাপুন।

ইন্সটলেশন সফল হলে Success পাতা দেখাবে। এবারে Login বোতামে চাপুন।

আপনার লোকাল সার্ভারে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল হয়ে গেছে। ওয়ার্ডপ্রেসের ওয়েবসাইট পরিচালনায় থাকে দুটো এন্ড বা অংশ। একটা থাকে ওয়েবসাইটের ফ্রন্টএন্ড বা সম্মুখভাগ, আরেকটা থাকে ব্যাকএন্ড বা এ্যাডমিন অংশ। এ্যাডমিন অংশ থেকে ওয়েবসাইটের যাবতীয় জিনিসপত্তর ঠিক করা হয়, নির্দেশনা দেয়া হয়, আর ফ্রন্টএন্ডে সেগুলো দর্শক বা ব্যবহারকারী দেখতে পান।

মনে রাখবেন, ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে তৈরি ওয়েবসাইটের প্রাথমিক ফ্রন্টএন্ড এবং ব্যাকএন্ডের ঠিকানাটা এরকম হয় (যা আপনার ব্রাউযারে লিখতে হয়):

http://localhost/nanodesigns (যেহেতু আমরা nanodesigns নামে প্রজেক্ট এবং ফোল্ডার রিনেম করেছিলাম)

http://localhost/nanodesigns/wp-admin কিংবা

http://localhost/nanodesigns/wp-login.php

ইন্সটল করা ওয়ার্ডপ্রেসের ওয়েবসাইট এবার কাজ করার জন্য উন্মুক্ত। তো ঘাঁটাঘাঁটি শুরু করে দিন। কোনো সমস্যা দেখা দিলে অবশ্যই আমাদের জানান। সামনের কোনো এক পর্বে আমরা ইন্টারনেট সার্ভারে কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করতে হয়, তা দেখার আশা রাখি, ইনশাল্লাহ।

ওয়ার্ডপ্রেস সংক্রান্ত যাবতীয় টিউটোরিয়ালে আমি কৃতজ্ঞতা স্বীকার করছি আমার শিক্ষক মোস্তাক মোহাম্মদ সামী’র। তাঁর আন্তরিক প্রচেষ্টা এবং ঐকান্তিক ইচ্ছার কোনো কমতি ছিল না আমাকে ওয়ার্ডপ্রেস শেখাতে। ঈশ্বর তাঁর মঙ্গল করুন।

-মঈনুল ইসলাম
ফ্রন্ট এন্ড ডিযাইনার ও ওয়েব ডেভেলপার

আপনার মন্তব্য জানান...